প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

32

শফিকুল ইসলাম, রাজিবপুর, (কুড়িগ্রাম)          তারিখঃ 22/05/2018ইং

আমি মোঃ কামরুল আলম বাদল, চেয়ারম্য‍ান, রাজিবপুর ইউনিয়ন পরিষদ, রাজিবপুর, কুড়িগ্রাম। দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় গত 16মে তারিখে প্রকাশিত শেষের পাতায় কুড়িগ্রামে মাদকের পৃষ্ঠপোষকতায় আ’লীগ নেতা ও জনপ্রতিনিধি শিরোনামটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়। সেখানে প্রধানমন্ত্রীর কাযালয়ের প্রতিবেদন-4 এ, 7 জন স্থানীয় জনপ্রতিনিদির মধ্যে আমার নাম অন্তরভূক্ত করা দেখানো হয়েছে। যা সম্পন্ন বানোয়াটি।এ প্রসঙ্গে জনাব, ‍জাকির হোসেন, সাবেদ এমপি, কুড়িগ্রাম-4 বলেন কামরুল আলম বাদলের নাম জরানো ঠিক হয়নি। এদিকে জনাব শফিউল আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান, রাজিবপুর, বলেন যে, জনাব কামরুল আলম ভাইয়ের নাম দেখে আমি রীতিমত হতভম্ব। তিনি একজন ভদ্র ঘরের সন্তান। তিনি এবং তার পরিবারের কেউ মদগাজা, বিড়ি পযন্ত খায়নি। কামরুল আলম বাদল বলেন আমি নিজে কোনদিন মদ খাইনি এবং মদ পানকারীর জন্য কোন সুপারিশ করিনি। বিগত বছর গুলোর চেয়ে আমার চেয়ারম্যানী সময় কালিন আমি সুনামের সহিত পরিষদ পরিচালনা করে আসছি। আমার মাদক বিরোধী কাযক্রম, সফলতার সহিদ ইউনিয়ন পরিষদ চালানো দেখে কিছু স্বার্থান্বেষী মহলের সাথে যোগ সাজসে হয়ত কোন গোয়েন্দা সংস্থা রিপোটটি ছাপিয়ে আমার সম্মানের হানি করেছে। আমার বিরুদ্ধে যে খবরটি ছাপানো হয়েছে তা মিথ্যা ও বানোয়াট আমি উক্ত খবরের প্রতিবাদ জানাচ্ছি।